নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির ২০১৭-২০১৮ কার্যকরী কমিটির নির্বাচনে বিএনপিপন্থী জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেল থেকে ১১টি পদে বিজয়ী হয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করায় বিজয়ীদের আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন জানিয়েছেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় মহাসচিব ব্যারিষ্টার এম খোকন।
বুধবার সকালে ব্যারিষ্টার এম মাহবুব উদ্দিন খোকনের পক্ষে গ্লোবালভিশন টোয়েন্টিফোর ডটকমকে এক ক্ষুদে বার্তায় এ শুভেচ্ছা জানান জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সুপ্রিম কোর্টের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এসএম জুলফিকার আলী জুনু।
সারা দেশেই বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের জয়জয়কার উল্লেখ করে ব্যারিষ্টার এম মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী সমাজ এ দেশের বিচার বিভাগকে স্বাধীন দেখতে চায়।  বিচার বিভাগের সুষ্ঠু পরিবেশ ও স্বাধীনতা সমুন্নত রাখতে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী সমাজ একযোগে কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
তিনি আরো বলেন, জাতীয়তাবাদী আইনজীবীদের এই বিজয় সরকারকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে বিএনপির জনপ্রিয়তা কতটুকু।  সারা দেশেই বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের এই জয়জয়কার আগামী নির্বাচনের যথেষ্ট ইঙ্গিত বহন করে বলেও মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের বার বার নির্বাচিত এই সম্পাদক।
মঙ্গলবার সকাল থেকে অনুষ্ঠিত ২০১৭-২০১৮ কার্যকরী কমিটির নির্বাচনে মোট ৯২৭ জন আইনজীবী ভোটারের মধ্যে কাস্ট হয়েছে ৯১৩ টি ভোট। নির্বাচনে ২টি প্যানেলে মোট ১৭টি পদের জন্য ৩৪ জন আইনজীবী প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এছাড়া কার্যকারী সদস্য পদে স্বতন্ত্র থেকে আরো ১ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন।
নির্বাচনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ মোট ৬টি পদে বিজয়ী হয়েছে আওয়ামীপন্থী আইনজীবী সাদা প্যানেল।  অপরদিকে সিনিয়র সহ-সভাপতি ও কোষাধ্যক্ষসহ বিএনপিপন্থী আইনজীবী পেয়েছন ১১টি পদ।
এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের প্যানেলের সভাপতি পদে হাসান ফেরদৌস জুয়েল, সেক্রেটারী পদে মোহসীন মিয়া, সিনিয়র সহ সভাপতি পদে আব্দুল লতিফ, সহ সভাপতি পদে সালাউদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ পদে জসিমউদ্দিন, আপ্যায়ন সম্পাদক পদে মনিরুজ্জামান কাজল, ক্রীড়া সম্পাদক পদে আবুল বাশার রুবেল, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে সাজ্জাদুল হক সুমন, লাইব্রেরী সম্পাদক পদে সুভাষ বিশ্বাস, আইন ও মানবাধিকার সম্পাদক পদে স্বপন ভূইয়া, সমাজসেবা সম্পাদক পদে ইসরাত জাহান ইনা, কার্যকরী সদস্য পদে মশিউর রহমান, রাশেদ ভূইয়া, সোয়েব আহমেদ শুভ, আবদুল মান্নান ও রুমানা আক্তার।
অপরদিকে বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ প্যানেলের ১৭ জন প্রার্থীরা হলেন- সভাপতি পদে জহিরুল হক, সেক্রেটারি পদে আব্দুল হামিদ ভূইয়া ভাসানী, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম খান রেজা, সহ-সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট আজিজ আল মামুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ মোল্লা, কোষাধ্যক্ষ পদে অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন মাসুম, আপ্যায়ন সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট সুমন মিয়া, আইন ও মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট জাহিদুল ইসলাম মুক্তা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম মাসুম, সমাজ সেবা সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট শারমীন, লাইব্রেরী সম্পাদক পদে ওমর ফারুক নয়ন, ক্রীড়া সম্পাদক পদে সাইদুল ইসলাম সুমন, কার্যকরী সদস্য পদে অ্যাডভোকেট আমেনা আক্তার শিল্পী, অ্যাডভোকেট আহসান হাবিব গোলাপ, অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম আনু, অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান ফাহিম ও অ্যাডভোকেট আল আমিন সবুজ। এছাড়া কার্যকরি সদস্য পদে একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছে। তিনি হলেন- আসাদুল্লাহ সাগর।
এ বছর নির্বাচন কমিশনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন অ্যাডভোকেট আক্তার হোসেন, নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট মোফাজ্জল হোসেন নান্নু, অ্যাডভোকেট নুরুল হুদা, অ্যাডভোকেট মাহাবুবুর রহমান মাসুম ও অ্যাডভোকেট কামরুন্নাহার বেগম। আপিল বোর্ডে রয়েছেন অ্যাডভোকেট শওকত আলী, অ্যাডভোকেট রমজান আলী ও অ্যাডভোকেট হারুন উর রশিদ।