আজকাল আইনের ধারা বদলাচ্ছে, পরিবর্তন, পরিবর্ধন হচ্ছে। সাংবাদিকদের প্রতিহত করার জন্যও ধারা তৈরী হচ্ছে। কিন্তু সাংবাদিকরা যে বিভিন্ন যায়গায় লাঞ্ছিত হচ্ছে, মার খাচ্ছে, তার জন্য কি কোন ধারা তৈরী হচ্ছে? হচ্ছে না, কিন্তু কেন?

সাংবাদিকদের বিপক্ষে ধারা থাকলে, পক্ষে কেন থাকবে না? অনুসন্ধানী বা ক্রাইম নিউজে এমন অনেক কিছু আছে যেটা সাংবাদিকদের গোপনীয়তা অবলম্বন করে করতে হয়। সেখানেও যদি অনুমতি নিতে হয় অথবা  নিষেধ থাকে, তাহলে আমরা অপরাদে কোথায় পৌছবো একবার ভেবে দেখেছেন। আমরা সাংবাদিকরাতো রাষ্টের পক্ষেই কাজ করি, কাজ করি অপরাধ নিমূলে, তাতে সমস্যা কোথায় আমার বোধগম্য নয়।

সাংবাদিক হল সমাজের দর্পন, আর সেই সাংবাদিককেই বারবার থামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা কেন করা হচ্ছে? আজ সাংবাদিকরা আইনের বেড়াজালে বন্দী হয়ে অনেক সত্যকে দেখেও তুলে ধরতে পারছে না। তবে কি কোন মহলের স্বার্থ হাসিলের জন্য সাংবাদিকদের আইন দিয়ে বেঁধে দেওয়া হচ্ছে।

গত ৬ই ফেব্রুয়ারী ক্রাইম প্রতিদিনে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বরাত দিয়ে একটি নিউজ করা হয়েছিল ‘ মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারায় কোনো সাংবাদিককে ধরা হলে তার পক্ষে বিনা পয়সায় আদালতে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক’

মন্ত্রী আরো বলেন, এই আইনের কোনো ধারাই সাংবাদিকদের জন্য করা হচ্ছে না। আর খসড়া আইনের ৩২ ধারা অনুসন্ধানী সাংবাদিকের জন্য বাধা হবে না।

আমি ধন্যবাদ জানাই, আইনমন্ত্রী আনিসুল হককে, উনি আমাদের পক্ষে কথা বলার জন্য। কিন্তু আমার প্রশ্ন তাহলে আইনে কোটেশন দেওয়া হচ্ছে না কেন ‘এই আইনের কোনো ধারাই সাংবাদিকদের জন্য প্রযোজ্য নয়’

পরিশেষে একটি কথা, সাংবাদিককে রাষ্টের বন্ধুভেবে, আমাদেরকে আমাদের দায়িত্ব পালনে পূর্বের ন্যায় সহযোগীতা করবেন এটাই আমাদের চাওয়া।