সারা দেশের মাঠপর্যায়ে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের অধীনে কর্মরত এ আই টেকনিশিয়ানরা স্থায়ী নিয়োগের দাবিতে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর ঘেরাও কর্মসুচি পালন ও একই সাথে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে। রবিবার সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত এই ঘেরাও কর্মসূচি পালন করা করে। পরে বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ এ আই টেকনিশিয়ান কল্যাণ সমিতির ব্যানারে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে পদযাত্রা ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করা হয়।

এ আই টেকনিশিয়ানরা মূলত স্বেচ্ছাসেবী হিসবে নিযুক্ত হয়ে ইউনিয়ন পর্যায়ে কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে উন্নত জাতের গবাদিপশুর উন্নয়ন ঘটানো। ২০১০ সালে টেকনিশিয়ানদের স্থায়ী নিয়োগ প্রদানের উদ্যোগ নেওয়া হলে পরে তা থমকে যায়। ২০১৫ সাল পর্যন্ত এই পদটির নাম ছিল স্বচ্ছাসেবী এবং ২০১৬ সালে মাসিক ৫০০ টাকা ভাতা প্রদান শুরু হয়।

বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ এ আই টেকনিশিয়ান কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো. আজাদ হোসেন বলেন, আমরা চার দফা দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছি। গত ২০ বছর ধরে অনেকে বিনা বেতনে কাজ করে আসছে। এখন আমরা চাই আমাদের স্থায়ী নিয়োগ দেওয়া হোক। মানবেতর জীবনযাপন থেকে আমরা মুক্তি চাই।

মো. আজাদ হোসেন আরও বলেন, আমরা প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ডিজির সাথে কথা বলেছি। তিনি আমাদের একটি প্রস্তাবনা দিয়েছেন, আমরাও আমাদের প্রস্তাব দিয়েছি।

বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ এ আই টেকনিশিয়ান কল্যাণ সমিতির চারদফা দাবি হলো স্থায়ী নিয়োগ, মাঠ পর্যায়ে সরকারি বিধিমালাবহির্ভূত কৃত্রিম প্রজননের কাজে কর্মরতদের নিয়ন্ত্রণ, কৃত্রিম প্রজনন কমিটিতে সমিতির প্রতিনিধি রাখা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে প্রতি ইউনিয়নে একজন টেকনিশিয়ানের বেশি না রাখা।