প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘জাতিসংঘ অধিবেশনে গিয়ে আন্তর্জাতিক যত নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা হয়েছে বৈঠক হয়েছে তারা সবাই প্রত্যাশা করেছেন আমি যেন আবার ক্ষমতায় আসি। বিশ্ব নেতৃবৃন্দ চায় আমি যেন বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখি।’

এসময় উপস্থিত সাংবাদিকরা করতালি দিলে প্রধানমন্ত্রী তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘হাততালি দেয়ার কিছু নেই। জনগণ ভোট দিলে ক্ষমতায় আসবো, না দিলে আসবো না।’

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে মিয়ানমারের ভূমিকা ইস্যুতে শেখ হাসিনা বলেন, ‘মিয়ানমারের সঙ্গে আমাদের চুক্তি হয়েছে। তবে সমস্যা হচ্ছে মিয়ানমার সব কথায় ‘হ্যাঁ’ বলে, কিন্তু কাজের বেলায় করে না।’

বুধবার (০৩ অক্টোবর) বিকেলে গণভবনে সংবাদ সম্মলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘নিজেদের ব্যক্তিস্বার্থে নয়, নিজেদের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য নয়- মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য মনের টানে আমরা দেশের জন্য কাজ করছি। এখন প্রত্যেকের জীবনমান উন্নত হচ্ছে। দেশে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমন করেছি। প্রত্যেক জায়গায় আজ উন্নয়নের জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আজ দশটা বছর একটানা ক্ষমতায় আছি বলেই সবাই শান্তিতে আছে। আমি মানুষের জন্য কাজ করবো। সে চিন্তা নিয়ে কাজ করছি বলেই আমি এগিয়ে যাচ্ছি।’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, ‘যেসব সাংবাদিকেরা মিথ্যা ও ভুয়া খবর প্রচার থেকে বিরত থাকবেন তাদের তো ভয়ের কিছু নেই। উদ্বেগের কিছু নেই। এটা তো বানোয়াট তথ্য প্রচারকারী সাংবাদিকদের নিয়ন্ত্রণের জন্য। ভয় নেই, আমি যতক্ষণ আছি। সাংবাদিকরা স্বাধীনভাবেই বস্তুনিষ্ট সংবাদ পরিবেশন করবেন।’

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী সফরে তুলে ধরা বিভিন্ন বিষয় ও বিশ্ব নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সফরকালে অনুষ্ঠিত বৈঠকের বিষয়গুলো তুলে ধরেন।