নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সফল এমপি শামীম ওসমান ফতুল্লায় ধর্মগঞ্জ এলাকায় ভোট দিয়েছেন। ৩০ ডিসেম্বর রোববার দুপুরে তিনি স্বপরিবারে ভোট দেন।

এর আগে নির্বাচনগুলোতে তার ভোটকেন্দ্র ছিল শহরের বার একাডেমী স্কুলে। এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ তার ভোট কেন্দ্র ছিল ফতুল্লার ধর্মগঞ্জ এলাকাতে সোনার বাংলা সংসদের অস্থায়ী কেন্দ্রে।

দুপুরে শামীম ওসমান,তার স্ত্রী সালমা ওসমান, ছেলে অয়ন ওসমান ও মেয়ে উপস্থিত হয়ে ভোট দেন।
এর আগে সকালে নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় রাইফেল ক্লাবে শামীম ওসমান বলেন,যতগুলো জায়গায় গিয়েছি, মানুষের যা সেন্টিমেন্ট দেখেছি,আমার মনে হয়েছে, মানুষের চোখের ইশারা,হাসি তো আমরা বুঝি। হাসির ইশারা দেখে বুঝেছি,উপস্থিতি শতকরা ৭৫ পার্সেন্ট থেকে ৮০ পার্সেন্ট মানুষে শেখ হাসিনাকে ভালবাসেন এবং নৌকাকে ভালবাসেন।

ভোট কেন্দ্রে ভোট প্রসঙ্গে শামীম ওসমান বলেন, আমাদের নেতাকর্মীরা সামাল দিতে পারে নাই ভোটার স্লিপ সাপ্লাই দিয়ে। আমার জানামতে ২১৬ টি সেন্টারেই ধানের শীষের পোলিং এজেন্টরা আছেন। কোথাও মুখ খারাপ হয় নাই,কোথাও ধাক্কাধাক্কি হয় নাই।
শামীম ওসমান গত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। এর আগে ১৯৯৬ সালের সংসদ নির্বাচনেও এই আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের এই হেভিওয়েট নেতা। সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করাকালিন সময়ে তিনি উন্নয়নের রূপকার হিসেবে সুনাম কুড়িয়েছেন।
এবাবের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে মোট ভোটার সংখ্যা হচ্ছে ৬ লাখ ৫১ হাজার ৯৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩ লাখ ২৯ হাজার ৬শ’৩৭ জন এবং নারী ভোটার ৩ লাখ ২১ হাজার ৪শ’৬২জন। মোট ভোট কেন্দ্র সংখ্যা হচ্ছে ফতুল্লায় ১৫৫ এবং সিদ্ধিরগঞ্জ ৬১। এর মধ্যে ঝূকিপূর্ণ কেন্দ্র ফতুল্লায় ১১৩,সিদ্ধিরগঞ্জে ৫৮টি এবং ৭ টি সিদ্ধিরগঞ্জে,ফতুল্লায় ৪২ টি সাধারণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।