নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ.কে.এম শামীম ওসমান বলেছেন, যুদ্ধাপরাধী গোলাম আজমকে নিষিদ্ধ করেছিলাম এটাই কি আমাদের দোষ। এই অপরাধে আমাদের অফিসে বোম হামলা করা হয়েছিল। সারা দেশে কোথাও আরডিএস মারা হয় নাই। আমাদের উপর আরডিএস মারা হয়েছিল। চন্দনের পা উড়ে গিয়ে পরেছিল দুরে। আমার হাত খুলে গিয়েছিল পা নষ্ট হয়ে গিয়েছিল আমার বিশটা ছেলে মুহূর্তে নাই হইয়া গেল। রক্তের উপর শুয়েছিলাম। রক্তের গরম কতটুকু আমি সেটা জানি।

(১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯) মঙ্গলবার  সন্ধ্যা ৭টায় ফতুল্লা বাজারে শাহ্ ফতেহউল্লাহ কনভেনশন হলের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমাকে বারবার জিজ্ঞেস করছিলেন ‘কিছু বলবেন’। আমি বারবার বলছিলাম, শেখ হাসিনাকে বাঁচান। আমি মরে গেলে এই দেশের কিছু হবে না। হয়তো বউ বাচ্চারা একটু কাঁদবে। আপনারা যারা ভালোবাসেন তারা কয়েকদিন মনে রাখবেন। কিন্তু শেখ হাসিনার কিছু হলে দেশ পিছিয়ে যেত। তিনি দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

শামীম ওসমান আরো বলেন, আমরা নিজেরাই জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছি। আমরা কাকে হত্যা করেছি, একটা বার কল্পনা করে দেখেছেন। আজ বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে দেশ আরো এগিয়ে যেতো। তারই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে তার কন্যা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তোমাদেরই পূর্ব পুরুষরা হত্যা করেছে বঙ্গবন্ধুকে তোমাদের কিছু করার নাই কিন্তু যারা বঙ্গবন্ধু কে হত্যা করেছে তাদের ঘৃণা করতে শিখো।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো.শওকত আলী, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ফতুল্লা থানা যুবলীগের সভাপতি মীর সোহেল আলী, সিনিয়র সহ-সভাপতি ও এনায়েত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আসাদুজ্জামান, যুগ্ম সম্পাদক ও ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার লুৎফর রহমান স্বপন, ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসলাম হোসেন, তদন্ত ওসি হাসানুজ্জামান, ফতুল্লা থানা কমিউনিটি পুলিশিং সভাপতি মীর মোজাম্মেল আলী।