প্রেস বিজ্ঞপ্তি : পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নাবী (সা:) উপলে আব্বাসী মঞ্জিল জৈনপুরী দরবার শরীফের (নারায়ণগঞ্জ) উদ্যোগে গত রবিবার বার্ষিক ইসলামী মহা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন আমির, তাহরিকে খাতমে নুবুওয়্যত বাংলাদেশ, আল্লামা মুফতি ড. এনায়েতুল্লাহ আব্বাসী ওয়া সিদ্দিকী পীর সাহেব জৈনপুরী। সভাপতির বক্তব্যে পীর সাহেব জৈনপুরী বলেন, যে ঘটনা ঘটে একবার, মনে পড়ে বারবার, মনে পড়ে যতবার, অনন্দ লাগে ততবার, তাকেই বলে ঈদ। আর ঈদে মিলাদুন্নবী (সা:) হলো আখেরী নবী হযরত মুহাম্মাদ (সা:) ১২ ই রবিউল আউয়াল এ ধরায় তাশরিফ আনেন। আমাদেরকে স্মরণ রাখতে হবে মিলাদুন্নাবী ছাড়া সিরাতুন্নাবীর অস্তিত্বই খুঁজে পাওয়া যায় না। নবীজীর আগমন না হলে আল­াহ তায়ালা পৃথিবী সৃষ্টি করতেন না। আর পৃথিবী সৃষ্টি না হলে কোরআন আসতো না। তাই কোরআনের মাস রমজানের চেয়ে রাসুলে মিলাদের মাস রবিউল আউয়াল সর্বশ্রেষ্ঠ। অথচ আজকের সমাজে একদল ফেৎনাবাজ মিলাদুন্নবী (সা:) কে নিয়ে কটুক্তি করতে চায় তাদেরকে আমরা বলতে চাই মিলাদ যার সিরাত তাঁর, সিরাত যার মিলাদ তাঁর, বাড়াবাড়ি করার কোন সুযোগ নাই। যদি কোন একটি নিয়ে কটুক্তি করা হয় তাহলে ঈমান থাকবে না।

পীর সাহেব জৈনপুরী আরো বলেন, বিগত কয়েকদিন যাবৎ ঘুর্নিঝড় বুলবুলের কারণে যে প্রাকৃতিক দুর্যোগের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল এতে সাড় দেশে অসংখ্য মাহফিল স্থগিত করা হয়েছে। কিন্তু আব্বাসী মঞ্জিল জৈনপুরী দরবার শরীফের এই আজিমুশ্বান নুরানী মহা সম্মেলনকে বাধাগ্রস্থ করতে পারে নাই। সারাদেশ থেকে ছুটো আসা রাসুল প্রেমিকেরা প্রমাণ করেছে তারা কতটুকু রাসুল প্রেমিক। তাই তিনি সকলকে মোবারকবাদ জানিয়ে আল্লাহ তায়ালার দরবারে শুকরিয়া আদায় করেন। ইসলামী মহা সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আল্লামা এমদাদুল্লাহ আব্বাসী জৈনপুরী, আল্লামা এহসান উল্লাহ আব্বাসী জৈনপুরী, আল্লামা নেয়ামাতুল্লাহ আব্বাসী জৈনপুরী, তেলাওয়াত করেন ক্বারী সাইয়েদ ওবায়দুল্লাহ আব্বাসী ওয়া সিদ্দিকী জৈনপুরী, পীরজাদা শফিকুল ইসলাম, পীরজাদা নাঈমুর রহমান, মাওলানা আব্দুল আজিজ আল হাবিবী, মাওলানা এনায়েতুল্লাহ মাজহারী, মাওঃ সিদ্দিকুর রহমান, মাওঃ তামিম বিল্লাহ আল কাদরী, মাওলানা আ: কাইয়ুম বিন আশরাফ প্রমূখ। সম্মেলন শেষে পীর সাহেব হুজুর বিদায়ী মোনাজাতে দেশ ও জাতির কল্যানে দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন।