নিউজ প্রতিদিন: অশান্ত আকবরনগর পরিদর্শন করেছেন বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের রাষ্ট্রীয় স্বর্ণপদক প্রাপ্ত সফল চেয়ারম্যান ও ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব এম শওকত আলী।

মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারী)  সকাল ১১ টায় আকবরনগরের প্রতাপনগর ইব্রাহীম মন্ডলের বাড়ী পরিদর্শন করেন।

গত সোমবার রাতে প্রতিপক্ষ রহিম ও সামেদ আলীর লোকজনকে ফাঁসাতে ইব্রাহীম মন্ডল নিজের স্ত্রী ও লোকজন দিয়ে তার রান্না ঘরে অগ্নিসংযোগ করান।খবর পেয়ে আকবরনগর পুলিশ বক্স হতে পুলিশ গিয়ে হাতে নাতে অনিক ও ইব্রাহীম মন্ডলের স্ত্রীকে আটক করে।পুলিশ বক্সের পুলিশ ইব্রাহীম মন্ডলের স্ত্রীকে ছেড়ে দিলেও আটক অনিককে ফতুল্লা থানা পুলিশের হাতে সোর্পদ করা হয়।

অগ্নিসংযোগের খবর পেয়ে আলহাজ্ব এম শওকত আলী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে মতবিনিময় সভাকরেন।তিনি কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন,শুধু আকবরনগর নয় বক্তাবলীতে কেউ বিশৃংখলা করার চেষ্টা করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা। কঠিন ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজেরা অগ্নিসংযোগ করার ঘটনাকে দুঃখজনক বলে উল্লেখ নেই।

তিনি এলাকাবাসীর উদ্দেশ্য আরো বলেন,রহিম হাজ্বী ও সামেদ হাজ্বী মধ্যে দীর্ঘদিনের বিরোধ ছিল তা মিটিয়ে দেয়া হয়েছে।একটি পক্ষ তা মেনে নিতে পারেনি।তারা চাইবে বিরোধ সৃষ্টি করতে তা যেন না হয় এলাকাবাসীকে সচেতন থাকতে হবে।ইব্রাহীম মন্ডল ও সুরুজ হাজ্বীর মধ্যে ইটভাটা নিয়ে যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে তা বসে সমস্যার সমাধান করা হবে।এ জন্য উভয় পক্ষকে শান্ত থাকতে হবে।

আকবরনগর গ্রামের লোকজন জানান, কাশেম মন্ডল ও খালেক মন্ডলের নির্দেশে ইব্রাহীম মন্ডল আকবরনগরে ভূমিদস্যুতা,ইটভাটা দখল সহ নানান অপকর্ম করে আসছে।এলাকাবাসী প্রতিবাদ করায় হামলা ভাংচুর চালায় ইব্রাহীম মন্ডল বাহিনী।

আলহাজ্ব শওকত চেয়ারম্যান পরিদর্শন কালে উপস্থিত ছিলেন ইউপি মেম্বার আতাউর রহমান প্রধান, জাহাঙ্গীর আলম মাষ্টার, আকিলউদ্দিন, রহিম হাজ্বী, সামেদ হাজ্বী, ফুলু মাদবর ও খবিরসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।