নিজের ঘরে ইহুদী রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অন্যর ঘরে ইহুদী খোঁজার চেষ্টা করছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ।

রোববার (১৫ মে) দুপরে রাজধানীর পল্টনে ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি আয়োজিত ঐতিহাসিক ফারাক্কা লং মার্চ স্মরনে ও পানি আগ্রাসনের প্রতিবাদে গণসমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

হান্নান শাহ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পুত্রবধূ ইহুদী। তাই আমরা কি ঢোল বাজাবো ইসরাইলের সঙ্গে তার কি সর্ম্পক আছে। আমরা এমনটা চাই না। শুধু বলবো কাঁচের ঘরে থেকে ঢিল ছুড়বেন না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের সঙ্গে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থার লোকদের ওঠা-বসা আছে। এটা শতভাগ সত্য। তাতে কোনো সমস্যা হয় না।
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি সর্ম্পকে হান্নান শাহ বলেন, বিএনপির তথা বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি তো নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার।

হাইজ্যাক, ক্রসফায়ারের কথা আগে কখনো শুনিনি। এগুলো ভারত থেকে আনা হয়েছে বলেন হান্নান।

হান্নান শাহ বলেন, ভারতের সঙ্গে কোনো প্রতিবেশি দেশের সর্ম্পক ভাল নেই। শুধু বাংলাদেশের সরকারের সঙ্গে ভাল সর্ম্পক আছে। কি কারনে সর্ম্পক আছে তা সবাই জানেন। ফারাক্কা বাধের কারনে বাংলাদেশের অনেক নদীর পানি শুকিয়ে গেছে। বাংলাদেশের কিছু দালালের কারনে আমরা অধিকার বঞ্চিত হচ্ছি। এ সরকার আমাদের অধিকার রক্ষায় কাজ করছে না। তারা ক্ষমতায় থাকা আর লুটপাট করতে যা যা দরকার তাই করছে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে ২০ দলীয় জোটের নেতৃবৃন্দ জনগণের অধিকার আদায়ের জন্য কাজ করছেন।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ৬১৬টি গার্মেন্ট কারখানা বন্ধ ও ৩১৪ টি  বন্ধ হওয়ার পথে। এতে কত লোক বেকার হয়ে পড়ছে। আরো কত লোক বেকার হবে। এই যদি হয় উন্নয়নের নমুনা। এ সরকার শুধু মুখে মুখে উন্নয়নের কথা বলে। খোঁজ নিয়ে দেখেন হাজার হাজার মানুষ চাকরিচ্যুত হচ্ছে। বেকারদের চাকরি হচ্ছেনা।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার ভারতের স্বার্থে কাজ করছেন। তাই ভারতের দালালদের প্রত্যাখ্যান করতে হবে। আর যারা দেশের স্বার্থে কাজ করে তাদের গ্রহন করতে হবে।

জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধানের সভাপতিত্বে গণসমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি, এনডিপির চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাতীয় পার্টি মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূইয়া প্রমুখ।