বিশেষ প্রতিনিধিঃ নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে এ কে এম শামীম ওসমান আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত করায় মহানগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের মধ্যে নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করেছে।  মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হলেও শেষ পর্যন্ত কে হচ্ছেন দলীয় প্রার্থী । এই নিয়ে জল্পনা কল্পনা শুরু হয়েছে সাধারণ নেতা কর্মীদের মাঝে। যদিও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দাবির মুখে আওয়ামী লীগ তাদের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন। তবে আওয়ামী লীগের হাই কমান্ড এ নিয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত জানায়নি। তবে নির্বাচনের আগে কোন নাটকীয়তার জন্ম না হলে শেষ পর্যন্ত আনোয়ার হোসেনই নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত থাকবে। গতকালকের সভা থেকে সাংসদ শামীম ওসমান বিএনপির প্রার্থী থাকা না থাকা নিয়ে প্রশ্ন মন্তব্য করায় বিএনপির পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে। নগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল এর প্রতিবাদ জানান। এর আগে এটিএম কামাল বিএনপি দলীয় মেয়র প্রার্থী হতে আগ্রহ প্রকাশ করে গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছে। যদিও এটা নিয়ে অনেকটা হাস্যরস্যেও সৃষ্টি হয়েছে বিএনপি ও রাজনৈতিক মহলে। উল্লেখ্য, ২০১১ সালের নির্বাচনে বিএনপি নির্বাচনের আগের রাতে তাদের দলীয় প্রার্থী তৈমুর আলমকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে নিয়ে বিতর্কেও জন্ম দেয়। সূত্রমতে, সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে মেয়র হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে এই ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতারাও সভায় উপস্থিত থেকে আনোয়ার হোসেনের প্রতি সমর্থন জানান। তবে সভা থেকে মেয়র আইভীর প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেও বক্তব্য দিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতারা। তাদের অভিযোগ মেয়র আইভী বিএনপি-জামাতের সাথে আতাঁত করে বিগত নির্বাচনে মেয়র হয়েছে। কিন্তু এবার তাকে আর সে সুযোগ দেয়া হবে না। অনেক নেতা আইভীর আওয়ামী লীগ বিমুখীতা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। শামীম ওসমান আসন্ন নির্বাচন প্রসঙ্গে বলেন, ‘কিন্তু এবার আর সে খেলা খেলতে দেওয়া হবে না। নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা দুই হাত তুলে মহানগরের সভাপতি পরীক্ষিত আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার হোসেনকে সমর্থন জানিয়েছেন। তাই আগামীতে ইনশাল্লাহ আনোয়ার ভাই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকার প্রতীক পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হবে। আর ওই নির্বাচন হবে আন কনটেস্ট। বিএনপির প্রার্থী কে হয় আমি দেখবো। তবে আনোয়ার ভাই আন কনটেস্ট পাশ করবে এটা নিশ্চিত।’ এদিকে শামীম ওসমানের এমন বক্তব্যের পর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন নগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল। তিনি বলেছেন, আগামী সিটি করপোরেশন নির্বাচনের সময়েই বলে দিবে বিএনপির প্রার্থী থাকবে কী না। আগে থেকে এমন হুংকার দিয়ে বিএনপিকে কাবু করা যাবে না। ভোটের আগে ঠিকই প্রার্থী থাকবে। আর শামীম ওসমানদের এ ধরনের বক্তব্য এটা নতুন কিছু না। ক্ষমতার সময়ে তিনি নারায়ণগঞ্জ থাকলেও ক্ষমতার বাইরে গেলে দেশ ত্যাগ করেন।