ক্ষমতায় থেকেও আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা নির্যাতিত ও নিপিরিত বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. শাহ-নিজাম।

নারায়ণগঞ্জে আসন্ন ২৯ তারিখের জনসভা সফল করার লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত এক কর্মী সভায় ফতুল্লা থানা যুবলীগের সভাপতি মীর সোহেল আলীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) বিকেলে ফতুল্লা থানা যুবলীগের কার্য্যালয়ে এই কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় শাহ-নিজাম আরো বলেন, ‌‌শুধু তাই নয়, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জন্ম এই নারায়ণগঞ্জের মাটিতে। কিন্তু এরপরও আমরা নারায়ণগঞ্জের আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা অবমূল্যায়ীত। মূলত নারায়ণগঞ্জে কবরীদের মত মানুষ আওয়ামীলীগের নেতৃত্ব দিয়ে ছিলেন বলেই এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। কবরী আওয়ামীলীগের মধ্যেই একটি ‘সাব আওয়ামীলীগ’ সৃষ্টি করেছে। এই জন্যে আমি মনে করি যে, সাংগঠনিক ভাবে আমরা পরিপূর্ন শক্তিশালী নই। ফলে এখনও আমরা পুলিশের কাছে হয়রানীর শিকার হচ্ছি। তবে আমাদের জন্যে সু-দিন অপেক্ষা করছে। কেননা আমাদের নেতৃত্বে রয়েছে আলহাজ্ব একেএম শামীম ওসমান। আর এই সু’দিনের প্রাপ্তী অর্জন করতে হলে অবশ্যই শামীম ওসমানের হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। এর জন্যে আগামী ২৯ তারিখের জনসভাটি সফল করার জন্যে সকল নেতা-কর্মীদের উপস্থিতি কামনা করছি।

সভাপতির বক্তব্যে ফতুল্লা থানা যুবলীগের সভাপতি মীর সোহেল আলী কর্মীসভায় উপস্থিত নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্য বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা তাদের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। জঙ্গিরা জনসভায় ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। তাই আসন্ন ২৯ তারিখের জনসভা সফল করা আমাদের জন্যে চ্যালেঞ্জ। এই জন্যে বরাবরের মতই বিশাল মিছিলের মাধ্যমে সভায় যোগদান করে আমরা জনসভা সফল করে সেই চ্যালেঞ্জে জয়ী হতে চাই। আমরা প্রমান করতে চাই যে, জননেতা আলহাজ্ব একেএম শামীম ওসমানের নেতৃত্বে ফতুল্লা থানা যুবলীগ অতিতে যেমন সক্রিয় ছিলো এখনও আছে এবং ভবিষ্যতেও সক্রিয় থাকবে। তাই আসন্ন ২৯ তারিখের জনসভায় ফতুল্লা থানা যুবলীগের মিছিলটি একটি স্মরনীয় মিছিলে পরিনত করার প্রত্যয় ব্যাক্ত করছি।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন, যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর, তরুন, ফয়সাল, আল-আমিন, পাপন, পাপ্পু সহ ফতুল্লা থানার দুর দুরান্ত থেকে সভায় যোগ দেয়া প্রায় শতাধীক নেতা-কর্মী।