রাজধানীর আশকোনায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে তিনতলা একটি বাড়ি ঘিরে অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পুলিশ বলছে, দুপুর সাড়ে ১২টার একটু পরে বাড়িটির ভেতর থেকে দরজা খুলে গ্রেনেড বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন এক নারী।

পুলিশ বলছে, অভিযানের শুরুতে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট ও সোয়াটের সদস্যরা ভবনের ভেতরে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এ সময় ভবনের ভেতর থেকে একটি বোমা বাইরে ছুঁড়ে মারা হয়। এতে পুলিশের ইন্সপেক্টর শফি আহমেদ আহত হন।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এক নারী দরজা খুলে শরীরে থাকা গ্রেনেডের বিস্ফোরণ ঘটান। এতে তিনি ছাড়াও আরেক শিশু গুরুতর আহত হয়।

প্রাথমকিভাবে জানা গেছে, ইতিপূর্বে জঙ্গি আস্তানায় নিহত সুমনের স্ত্রী তৃশা ওই গ্রেনেডের বিস্ফোরণ ঘটান। এ সময় নিহত আরেক জঙ্গি ইকবালের সাত বছরের মেয়ে আহত হয়।

মেয়েটিকে উদ্ধার করে অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে ওই নারী ও আরেকজন ভবনের ভেতরেই রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, ওই নারীর সঙ্গে থাকা ব্যক্তিই আজিমপুরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে নিহত জঙ্গি তানভীর কাদেরীর ছেলে আবীর।

ডিবির অতিরিক্ত উপকমিশনার মো. শাহজাহান ঘটনাস্থল থেকে জানান, বাড়িটিতে দু’জন রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে। তবে তারা মৃত কি না তা যাচাই করে দেখা হচ্ছে।

এর আগে শুক্রবার মধ্যরাত থেকে রাজধানীর আশকোনায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ‘সূর্য ভিলা’ নামের তিনতলা একটি বাড়ি ঘিরে রাখে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এক পর্যায়ে শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সেখান থেকে চারজন আত্মসমর্পণ করেন।

পরে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া সাংবাদিকদের জানান, বাড়ি থেকে চারজন আত্মসমর্পণ করেছে। আর ভেতরে আজিমপুরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে নিহত জঙ্গিদের অর্থদাতা তানভীর কাদেরীর ছেলে আবীরসহ তিনজন অবস্থান করছে।