সূর্য-স্নান

——মোঃ সেলিম মিয়া

ঢেউ সাগরের, নীলিমার,রঙ্গের নৃত্যে-তালে,
শন-শনানী, মিষ্টি-মধুর হাওয়ার পালে
ছন্দময় জোয়ার-ভাটার সৃষ্ট জালে,
শব্দ-ভেসে নুপুর বাজে, মন দেয়ালে।

কেশবতী রানীর কপল মাঝে,দুরন্ত স্বরে,
এলোমেলো কেশমেলে, রুপের ঝলক বৃদ্ধি করে।
অবাক বিস্ময়-চমক নিশ্চয়, জীবন গানে,
সূর্য-স্নানে, উড়ে গেলো আকাশ পানে।

আমি সাগরের ঢেউ মিষ্টি হাওয়ার শন-শনানী,
দুরন্ত স্বর, অবাক বিস্ময় হয়েছি বলে।
তুমি ঝিক-মিক বেলাভূমির খাটি মুক্তার ন্যায়,
নীলিমার নিখুঁত নীলয়া হয়ে প্রতিদান দিলে।

যেই আমি পাখি হয়ে পাখা মেলে,
হাওয়ায় দুলে মিশে যাই উড়ে-উড়ে।
বারে-বারে,ফীরে-ফীরে,ধীরে-ধীরে যাই ছুটে,
তোমার বাহারি কপল চুমি, দিব জেনে।

সেই তুমি অপকন্ঠিত শরীরের চঞ্চলা হাওয়া,
রিদয়ের স্পন্দনে মহুয়ার আঁচলে তুলে নাও আমাকে।
রুপালি শরীর কনায়-কনায় নিঝুম রাত্রির নির্ঘুম সময়
শতদল মেলে ভালোবাসার পরশ আমায় দাও মধুক্ষনে!