কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ঈদের দিন বাসা থেকে নেয়া খাবার খেতে না দিয়ে অমানবিক আচরণ করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার রাতে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা আলমগীর বলেন, কারা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করেই বেগম খালেদা জিয়ার পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্য দুপুরে বাসা থেকে ঈদের খাবার নিয়ে যান। তারা সেখানে যাওয়ার পরেই বলা হয়, ৬ জনের বেশি দেখা করতে পারবেন না এবং খাবার নিয়ে যাওয়া যাবে না। কারা কর্তৃপক্ষ পরিষ্কার জানিয়ে দেয় এ বিষয়ে সরকারের নির্দেশ আছে।

তিনি বলেন, এটা অত্যন্ত অমানবিক ঘটনা। বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে এটা নজিরবিহীন ঘটনা। আজ পর্যন্ত এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় সাজা হওয়ার পর পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি আছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। কারাগারে এটি তার দ্বিতীয় ঈদ।

গত ঈদুল ফিতরের মতো ঈদুল আজহায়ও পরিবারের সদস্য ও স্বজনরা তার সঙ্গে কারাগারে দেখা করেন।

এ ঈদে কারাগারের ভেতরে ছয়জন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন। তারা হলেন- খালেদা জিয়ার বড় বোন সেলিনা ইসলাম, ভগ্নিপতি অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান, নানতি জাহিয়া রহমান, ভাই সাঈদ এস্কান্দরের স্ত্রী নাসরিন সাঈদ ও তারেক রহমানের স্ত্রীর বোন শাহিনা খান।