নরসিংদীর মাধবদীতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা দুটি বাড়ির আশপাশের এলাকায় মাইকিং করে সবাইকে সরিয়ে দিচ্ছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের সদস্যরা।

মঙ্গলবার সকাল থেকে স্থানীয় জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় মাইকিং করে এলাকাবাসী ও সাংবাদিকদের সরিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানান নরসিংদী জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হাসান।

এদিকে  ঢাকা থেকে সোয়াতের একটি দল এসে সদর উপজেলার শেখেরচরের দিঘিরপাড় চেয়ারম্যান বাড়ি সড়কে অপর বিল্লাল মিয়ার সাত তলা বাড়িতে প্রবেশ করেছেন।  সেই বাড়িতে অবস্থানরত সকল বাসিন্দাদের নামিয়ে নেয়া হয়েছে। আর কিছুক্ষণের মধ্যেই অভিযান শুরু হবে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।

এর আগে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শিবপুর সার্কেল) থান্ডার খায়রুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, সাত তলা বাড়িটির এক তলা থেকে তিন তলা পর্যন্ত মিততাহুল জান্নাহ হমিলা মাদ্রাসা।

আমরা গোপন সূত্রে তথ্য পেয়েছি বাড়িটির ৭ তলার একটি বাসায় ৭ জন জঙ্গি অবস্থান করছে। এরই ভিক্তিতে পুলিশ ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের ১৫০ জন সদস্য যৌথভাবে এই অভিযান চালাচ্ছে।

এছাড়া শেখেরচরের দিঘিরপাড় চেয়ারম্যান বাড়ি সড়কের আরেকটি বাড়িতেও জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পাওয়া গেছে, বলেন ওই কর্মকর্তা।

এদিকে রাত দেড়টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন নরসিংদীর পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন। তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের নিরাপদ দূরত্বে থেকে দায়িত্ব পালন করতে বলেন।

পুলিশ জানায়, আস্তানাগুলোতে জঙ্গি রয়েছে এটা নিশ্চিত হয়েই এই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এখন ভেতরের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।