এম এম হাসান: রাস্তায় প্রকাশ্যে এক নসিমন চালককে পিটিয়ে সমালোচনার মুখে পড়া নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভার মেয়র সাদেকুর রহমানকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে সোনারগাঁ উপজেলার গোয়ালী এলাকার নিজ বাসা থেকে তাকে আটক হয়।
পরে মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে মুচলেকায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর এনামুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জেলা পুলিশের “ইন্সপেক্টর মিডিয়া”সাজ্জাদ রোমন পুলিশ সুপারের বরাত দিয়ে বলেন,কেউ আইনের ঊর্ধ্বে না। যত প্রভাবশালী হোক না কেনো অপরাধ করে কেউ ছাড় পাবে না।

তিনি আরো জানান, কিশোর চালককে নির্যাতনের ঘটনায় সোনারগাঁয়ের মেয়রকে আটক করা হয়েছে। এই সংক্রান্ত সংবাদ ও ভিডিও পুলিশ সুপার মহাদয়ের নজরে এলে তিনি তৎক্ষণাৎ যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ ডিসেম্বর (শনিবার) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে মহাজোট মনোনীত জাতীয় পার্টির প্রার্থী লিয়াকত হোসেন খোকার পক্ষে গণসংযোগ শেষ করে নিজ গাড়িতে চড়ে বাসায় ফিরছিলেন মেয়র সাদেকুর রহমান সাদেক। এ সময় সোনারগাঁ জাদুঘরের সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা বাঁশবোঝাই নসিমনের সঙ্গে তার গাড়ির সংঘর্ষ হয়। এতে মেয়রের গাড়ির এক পাশের রঙ উঠে দাগ পড়ে যায়।
এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়র সাদেকুর রহমান গাড়ি থেকে বের হয়ে নিজের হাতে থাকা লাঠি দিয়ে নসিমন চালক যুবককে মারতে শুরু করেন। ওই যুবক অপরাধ শিকার করে বার বার মেয়রের পা ধরে ক্ষমা চেয়েও রক্ষা পাননি। পরবর্তীতে মেয়রের সমর্থকরাও ওই যুবককে মারধর করে গাড়িসহ আটকে রাখে।

এ ঘটনার ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। শুরু হয় নিন্দার ঝড়। সবখানে মেয়রের শাস্তির দাবি ওঠে। পরবর্তীতে সোমবার দিবাগত রাতে নিজ বাসা থেকে পৌর মেয়র সাদেকুর রহমানকে আটক করলো ডিবি।