নিউজ প্রতিদিন : জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবী দলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর মৎস্যজীবী দলের নেতাকর্মীরা। রবিবার (১ মার্চ) সকালে দলের মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে ঢাকার চন্দ্রিমা উদ্যাণে অবস্থিত জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান তারা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির মৎস্য বিষয়ক সম্পাদক লুতফর রহমান কাজল, মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক রফিকুল ইসলাম মাহতাব, সদস্য সচিব আবদুর রহিম, নারায়ণগঞ্জ জেলা মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক এড. এইচএম আনোয়ার প্রধান, যুগ্ম আহবায়ক এড. শেখ আনজুম আহমেদ রিফাত, এইচএম হোসেন, দেলোয়ার হোসেন দিলিপ, মহানগর মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব সাগর প্রধান, যুগ্ম আহবায়ক ঋষিকেশ মন্ডল মিঠু, সদর থানা মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক সাখাওয়াত হোসেন জ্যাকি, ফতুল্লা থানা মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব রাসেল প্রধান, যুগ্ম আহবায়ক আজিজুল হক, মোঃ হোসেন, বক্তাবলী ইউনিয়ন মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক ছলিমুল্লাহ হৃদয়, সদস্য সচিব মুজাম্মেল প্রধান, কুতুবপুর ইউনিয়ন মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক ওমর ফারুক নাঈম খান, সদস্য সচিব-সৈয়দ লিটন, কাশিপুর ইউনিয়ন মৎস্যজীবী দলের যুগ্ম আহবায়ক জাকির হোসেন প্রমূখ।শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বিএনপির মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন আইনি প্রক্রিয়ায় কারাবন্দি ও চিকিৎসাধীন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন না হওয়ায় আন্দোলনেই তার মুক্তির পথ। আমরা জনগণের কাছে যাচ্ছি এবং তাদের ঐক্যবদ্ধ করার কাজ করছি। আমি বিশ্বাস করি যে, জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রের নেতা খালেদা জিয়া মুক্ত হবেন।মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা (সরকার) আজকে শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে খালেদা জিয়াকে আটকে রেখেছে। রাজনৈতিক কারণেই প্রাপ্য জামিনটা পর্যন্ত তাকে দিচ্ছে না।’

খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আমরা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করেছি ও করছি বলে উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘খালেদা জিয়া শুধু বিএনপির নেতা নন, তিনি সমগ্র দেশের মানুষের গণতন্ত্রের মুক্তির নেতা। সেই কারণেই তার অসুস্থতা আমাদের সবাইকে এখন অত্যন্ত উদ্বিগ্ন করেছে। তাকে মুক্ত করার চেষ্টা করছি। গত দুই বছর ধরে তাকে একদিকে আইনগতভাবে, আরেক দিকে রাজনৈতিকভাবে মুক্ত করার জন্য আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। কিন্তু এই ফ্যাসিস্ট সরকার তাকে অন্যায়ভাবে অবৈধভাবে আটকে রেখেছে।’

বিদ্যুতের দাম সামান্য বাড়ানো হয়েছে— বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা তো জনগণ থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন। জনগণের দুঃখ-দুর্দশা এখন তাদের কাছে প্রশ্ন নয়। সমস্যাটা হচ্ছে যে, এই আওয়ামী লীগ যেহেতু জনগণের থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, সেজন্য জনগণের যে ব্যথা-বেদনা, দুঃখ-কষ্ট এগুলো তারা বুঝতে পারে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজকে যেটা ওবায়দুল কাদের সামান্য বলছেন, সেটা যে একদম সাধারণ মানুষের জন্য কত অসামান্য, এটা বুঝার শক্তিও তার নেই। কারণ, তারা এমন জায়গায় চলে গেছেন, যেখানে হাজার হাজার কোটি টাকা, শত শত কোটি টাকা তাদের লোকজনদের বাড়ির মধ্যে, গোডাউনের মধ্যে পাওয়া যায়। তারা তো বুঝবেন না মানুষের কষ্টটা কোথায়।এখন কানাডায় বাড়ি, ইংল্যান্ডে বাড়ি, নিউইয়র্কে বাড়ি— এগুলোই এখন তাদের পাওয়ার। আমরা এটা বুঝি, সেজন্য জনগণ তাদের কাছ থেকে মুক্তি চায়।’

বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপি কেন্দ্রীয়ভাবে সোমবার (২ মার্চ) সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এবং সারাদেশে জেলা সদরে মানববন্ধন করবে বলেও জানান মির্জা ফখরুল।