নিউজ প্রতিদিন: নারী নির্যাতনের মামলায় আততায়ীর হাতে নিহত মাকসুদের শ্যালক শাহ ফয়েজউল্লাহ ওরফে  ফয়েজকে গ্রেফতার করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। শনিবার (২৮ মার্চ) রাত সাড়ে ১০ টায় শহরের জামতলা এলাকা থেকে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

এর আগে শনিবার সন্ধ্যার দিকে ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে তার স্ত্রী আরোহী হাওলাদারকে ফয়েজউল্লাহ বাড়ি থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তিনি তার স্বামী  যুবলীগ নেতা শাহ ফয়েজ উল্লাহ ওরফে ফয়েজের বিরুদ্ধে মারধর ও যৌতুকের অভিযোগ এনে মামলা করলে পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে ফয়েজউল্লাহ ফয়েজকে গ্রেফতার করেন।

গ্রেফতারকৃত শাহ ফয়েজউল্লাহ ওরফে  ফয়েজ শহরের জামতলা এলাকার শাজাহান মিয়ার ছেলে ও আততায়ীদের হাতে নিহত নুরুল আমিন মাকসুদ ওরফে  মাকসুদের শ্যালক।

মামলা দায়ের ও গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শাহাদাত হোসেন। তিনি গণমাধ্যম কে বলেন, আমরা ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে আরোহী নামে এক নারীকে ফয়েজউল্লাহ ফয়েজের বাড়ি থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসি।পরে তিনি তার স্বামীর বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন ও যৌতুকের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

নির্যাতিতা স্ত্রী আরোহী তার অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, বিয়ের পর থেকেই তার স্বামী   ফয়েজউল্লাহ ওরফে ফয়েজ যৌতুকের দাবিতে প্রায় সময়ে নির্যাতন করতেন। এরমধ্যে তাদের ঘরে একটি সন্তান ও জন্ম নেয়। তারপরও যৌতুক দাবি করে নির্যাতন করতেন।ফয়েজের এমন দাবীর মুখে ইতিপূর্বে আট লাখ টাকা এনে ফয়েজের হাতে তুলে দেন তিনি। পরবর্তীতে আরও দুই লাখ টাকা দাবি করে পুনরায় নির্যাতন করতে থাকেন। এরমধ্যে সর্বশেষ ২৭ মার্চ টাকার দাবিতে তার উপর নির্যাতন চালান ফয়েজ। এমনকী তাকে ঘরে আটকে রাখেন। পরে তিনি ২৮ মার্চ ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশের সাহায্য চাইলে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে।ফ

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেনও গনমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন, রাতে শহরের জামতলা এলাকা থেকে ফয়েজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।