নিউজ প্রতিদিন ডটনেট : কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগের দাবিতে মানববন্ধন করেছে।

১১ জানুয়ারী (সোমবার) সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে জেলা বিএনপির উদ্যোগে এ আয়োজন করা হয়। ঘন্টাব্যাপী আয়োজিত কর্মসূচির সভাপতিত্ব করেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও জেলার নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটির সভাপতি এ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার।

এড. তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, এদেশের নির্বাচন কমিশন কত বড় নির্লজ্জ তা আর বলার অবকাশ রাখে না। বাংলাদেশে শুধু একজন লোককে খুশি রাখতে সব চালানো যায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে খুশি রাখলেই সব চালানো যায়। ৪২ জন বিশিষ্ট নাগরিক ইসির পদত্যাগ দাবিতে রাষ্ট্রপতি বরাবর আবেদন দিয়েছেন। মাননীয় রাষ্ট্রপতি, আপনি যদি শুধু আওয়ামী লীগের রাষ্ট্রপতি হয়ে থাকেন তাহলে কিছু বলার নেই। কিন্তু যদি সারাদেশের মানুষের রাষ্ট্রপতি হয়ে থাকেন তাহলে এই ইসির যে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে তদন্ত করবেন, ব্যবস্থা নেবেন। আপনি আপনার স্বচ্ছতা ও আপনি যে দেশবাসীর রাষ্ট্রপতি সেটি প্রমাণ করতে এ আবেদনের তদন্ত করবেন।

তিনি আরো বলেন, আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধেও একটি মিথ্যা মামলায় যে পরোয়ানা জারি হয়েছে সেটিও প্রত্যাহার করার দাবি জানাই আমি।

এসময় আরোও বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপি’র যুগ্ন আহবায়ক নাসির উদ্দিন, জাহিদ হাসান রোজেল, মনিরুল ইসলাম রবি ও সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে দূর্ণীতিবাজ আখ্যা দিয়ে বলেন, নির্বাচন কমিশনারের দুর্নীতির ব্যাপারে দেশের ৪২ জন বিশিষ্ট নাগরিক রাষ্ট্রপতির কাছে তথ্য দিলেও সরকার এই দুর্নীতিবাজ নির্বাচন কমিশনারের পক্ষে কথা বলছে। বিশিষ্ট নাগরিকদের দেয়া এইসব তথ্য তদন্ত করে নির্বাচন কমিশনারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানান বিএনপি নেতারা। মানববন্ধন শেষে নেতা-কর্মীরা মিছিল করতে চাইলে পুলিশ তাদের বাধা দিয়ে রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়।