নিউজ প্রতিদিন ডটনেট : নারায়নগঞ্জ জেলার সদর উপজেলায় ফতুল্লায় মঙ্গলবার সকালে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল কেন্দ্রীয় (ঢাকা বিভাগীয়) কমিটির সঙ্গে নারায়নগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানা শাখার স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা- কর্মীদের সাথে কর্মী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ফতুল্লা ডি,আই,টি মাঠ সংলগ্ন রিয়াদ মোহাম্মদ চৌধুরীর বাস ভবনে অনুষ্ঠিত কর্মী সভায় জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার সাদাত সায়েমের সভাপতিত্বে ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুর রহমানের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ- সভাপতি আনু মোহাম্মদ শামীম আজাদ।

এ সময় প্রধান অতিথি আনু মোহাম্মদ শামীম আজাদ স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক কমিটির প্রার্থীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আমরা আপনাদের এখানে কারো ব্যক্তি, চেহারা বা অবস্থান নির্ণয় করে নির্বাচন করবো না।আপনেরা অনেকেই অনেক মামলা হামলা, জেল জুলুমের শিকার হয়েছেন দেখেছি। আপনাদের এখানে ১৬ বছর ধরে কোন নতুন কমিটি নেই।তাই আমরা অতীতে যারা মাঠ পর্যায় জোড়ালো ভাবে কাজ করেছে, মামলা,হামলা ও জেল জুলুমের শিকার হয়েছে তাদের থেকে মূল্যায়ন করে নেতা নির্বাচিত করবো। এবং এখানে বর্তমান অস্থায়ীভাবে ২১ সদস্য বিশিষ্ট একটি আহবায়ক কমিটি করবো।আমাদের দেশের গনতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে পূর্বের ন্যায় আপনেরা সবাই রাজপথের এক সাথে কাজ করবেন।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের আন্দোলন, সংগ্রাম, প্রতিরোধ, প্রতিবাদ এই নারায়ণগঞ্জ জেলা থেকেই শুরু হয়েছে। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে স্বাধীনতা যুদ্ধ, গণঅভার্থান এই নারায়ণগঞ্জ থেকেই শুরু হয়েছে।আর আমাদের নেতা তারেক জিয়া দেশে গনতন্ত্র ও মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য কাজ শুরু করেছে। ১৯৭১ সালে ৩০ শহীদের রক্তের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হলেও এখনো দেশের মানুষ স্বাধীন না কারন এখনো বাসায়, অফিসে বসে কোন মিটিং মিছিল করলে পুলিশের বাঁধার মুখে পড়তে হয়।

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ে দীর্ঘ ৩০ বছর পর ডাকসুর নির্বাচন হয়েছে তাও ভোট চুরির মাধ্যমে। জনগনের ভোটের অধিকার বিএনপি ফিরিয়ে দিবে না।আপনাদেরই অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে হবে।আর তাই জনগনের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনতে নেতার নির্দেশে আমরা অতীতের জেল জুলুম, মামলা হামলায় মাঠে যারা কাজ করছে তাদের এনে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য কাজ করছি।

সভাপতির বক্তব্যে আনোয়ার সাদাত সায়েম বলেন,আজকে আমরা কর্মী সভায় সবাই উপস্থিত হয়েছি একটি নতুন কমিটির জন্য।ফতুল্লা থানা নেতাকর্মীরা অতন্ত নিষ্ঠাবান, শৃঙ্খল ও কর্মঠ।তাই আপনাদের কাজের উপর ভিত্তি করে কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা মূল্যায়ন করে নেতা হিসেবে নির্বাচিত করবে।যারা মাঠ পর্যায় কাজ করে জেল জুলুম, মামলা হামলার শিকার হইছে তাদেরই মূল্যায়ন করা হবে কোন ব্যক্তি বা দলকে প্রাধান্য দেওয়া হবে না। আমাদের নেতা তারেক জিয়ার নির্দেশ মোতাবেক আপনাদের থেকে নেতা নির্বাচিত হবে।

এর আগে কেন্দ্রীয় কমিটি ও নারায়ণগঞ্জ জেলার নেতাকর্মীদের ফুলের শুভেচ্ছা ও ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা প্রদান করা হয়।এবং ফতুল্লা আহবায়ক কমিটির আহবায়ক পদে জাকির হোসেন রবিন, জহিরুল ইসলাম, আবুল হোসেন পায়েল, ফারুক হোসেন সানি, আনোয়ার হোসেন গাজী, রাসেল মাহমুদ, জাকির হোসেন রবি, কাজী মাজেদুল হক মোট ৬ জন এবং সদস্য সচিব পদে আমিনুল ইসলাম লিটন, মোহাম্মদ আলী, মতিউর রহমান ফকির, হারুন অর রশিদ হারুন, এস কে শাহীন, নজরুল ইসলাম, মোহাম্মদ হানিফ মোল্লা, মুক্তার হোসেন, পিন্টু, এস এম দেলোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ সোহাগসহ মোট ১৩ প্রার্থীর বক্তব্য কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা শুনেন।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সাধারন সম্পাদক জুলফিকার হোসেন জনি, সালাউদ্দিন শাহীন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আকরামুজ্জামান টুকন, মোঃ শরিফ ফেরদৌস। উক্ত কর্মী সভায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল কেন্দ্রীয় কমিটির কমিটির সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক রিয়াদ মোহাম্মদ চৌধুরী, প্রস্তাবিত কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ সম্পাদক আলমগীর হোসেন শামীম, নারায়ণগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন মোল্লা, জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল কুমিল্লা জেলার সহ-সভাপতি নিজাম উদ্দিন জুয়েল কুমিল্লা উত্তরের ছাত্র দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওয়াহিদ মোল্লা প্রমূখ।