নিউজ প্রতিদিন ডটনেট : নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার বক্তাবলীতে সবুর’মার মেলার অনুষ্ঠানে নাচানাচিকে কেন্দ্র করে জামাল হোসেন (৩০) নামে এক যুবককে বুকে ও পেটে এলোপাথারী ছুরিকাঘাত করে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম করে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা জামালকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

সোমবার (২৬ জানুয়ারী) রাত সাড়ে ১১টায় ফতুল্লার বক্তাবলী ইউনিয়নের রামনগর গ্রামে এঘটনা ঘটে। আহত জামাল হোসেন ফতুল্লার বক্তাবলী ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের মৃত. আমির হামজার ছেলে।

এদিকে ঘটনার পরপর উল্টো আহতের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করতে গিয়ে গ্রেফতার হয়েছে হৃদয় হোসেন বাবু ও রাসেল নামে দুই ব্যক্তি। বাবুর বিরুদ্ধে কক্সবাজারের একটি থানায় মাদক আইনে মামলা রয়েছে। আর রাসেলের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মাদক মামলা রয়েছে।

এঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে আহতের বড় ভাই আবুল হোসেন বাদী হয়ে গ্রেফতারকৃত দুজনসহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছে।

মামলার বাদী আবুল হোসেন জানান, সোমবার রাতে প্রতিবেশী সলিমউদ্দিনের বাড়িতে গান বাজনার অনুষ্ঠান চলাকালে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীরা এসে গানবাজনা বন্দ করার জন্য হুমকি দেয়। এসময় তার ভাতিজা শুভ (১৮) প্রতিবাদ করায় সন্ত্রাসীরা তাকে মারধর করে চলে যায়। পরে শুভ’র চাচা জামাল শুভকে কেন মারধর করেছে তা জিজ্ঞেস করতে গেলে তাদের সাথে তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে তার বুকে ও পেটে এলোপাথারী ছুরিকাঘাত করে সড়কের পাশে ফেলে দেয়।

এরপর স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল  হাসপাতালে নিয়ে যায়। জামালের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। শরীরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় তাকে আইসিওতে রাখা হয়। জামাল হোসেন এখন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।