নিউজ প্রতিদিন ডটনেট: আসন্ন ইউপি নির্বাচনে নারায়নগঞ্জ সদর উপজেলার বক্তাবলী ইউপি’র ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার পদপ্রার্থী মো. রশীদ আহমেদ তার নির্বাচনী এলাকায় ব্যাপক প্রচার-প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি তার ওয়ার্ডের প্রতিটি ভোটারের দ্বারে দ্বারে গিয়ে তাদের যাবতীয় সুবিধা অসুবিধার খোজ খবর নিচ্ছেন এবং ১১ নভেম্বর নির্বাচনে তাকে ভোটারদের মুল্যবান ভোটের মাধ্যমে জয়লাভের ব্যাপারে তাদের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন।

সরে জমিনে নির্বাচনী এলাকাতে ঘুরে দেখা যায় , বক্তাবলী ইউপি’র ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী যে ক’জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশ গ্রহন করছে তাদের মধ্যে বর্তমান মেম্বার প্রার্থী মো. রশীদ আহমেদ শিক্ষিত, মার্জিত স্বভাবের এবং সদা মিষ্টভাষী এলাকাতে ব্যাপক জনসমর্থন রয়েছে। ওয়ার্ডের বিভিন্ন ভোটারদের সাথে আলাপকালে সাধারন ভোটাররা জানান, মো. রশীদ আহমেদ একজন ন্যায় পরায়ন ব্যক্তি। তার মত যোগ্য প্রার্থী পেয়ে আমরা সত্যিই আনন্দিত। কারন হিসেবে তারা উল্লেখ করে বলেন আমাদের সুপরিচিত মুখ মো. রশীদ আহমেদকে আমরা সাধারন ভোটাররা বিপদে আপদে সব সময় কাছে পাই। তিনি যদি  নির্বাচনে জয়লাভ করেন তাহলে আমাদের অবহেলিত এ ওয়ার্ডে ব্যাপক উন্নয়ন করবেন বলে আমরা আশাবাদী।

তাছাড়া এলাকাবাসি ও ভোটারদের মাঝে রয়েছে তার জনসমর্থন। এলাকার সাধারন মানুষের নেই কোন অভিযোগ । এ বিষয়ে মেম্বার প্রার্থী মো. রশীদ আহমেদ বলেন, আমি যদি আমার এলাকার সাধারন ভোটারদের ভোটে প্রতিনিধি নির্বাচিত হই তাহলে আমি আমার ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের যাবতীয় উন্নয়ন মুলক কাজ করে যাবো। তিনি বলেন, বিগত নির্বাচনে অল্প কয়েক ভোটে পরাজিত হওয়ার পরও আমার নির্বাচনী এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন মূলক কাজ করছি। এছাড়াও  সমাজ থেকে মাদক, ইভটিজিং, ভুমিদস্যুতা প্রতিরোধে সামাজিকভাবে ব্যাপক কাজ করছি।

তিনি আরও বলেন,বেকার যুব সমাজের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে স্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠানের সাথে সমন্বয় করে চাকুরীর ব্যবস্থা করবো। অসহায় নারী পুরুষদের জন্য সরকার প্রদত্ত বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা,বয়স্কভাতা প্রদানের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা আনবো, জন্ম নিবন্ধন, ওয়ারিশ সনদ, ট্রেড লাইসেন্স যেন সহজ উপায়ে পায় তা দ্রুত বাস্তবায়ন করব। তিনি আরও বলেন, আমি ব্যক্তিগত ভাবে দীর্ঘদিন যাবত দুস্থ নারী-পুরুষের মাঝে নগদ অর্থ, শীত বস্ত্র,ঈদে বিভিন্ন সামগ্রী দিয়ে আসছি তা আরো ব্যাপকতর করবো। আমি আশাবাদী সাধারন ভোটাররা আমাকে তাদের মুল্যবান ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করে তারা আমাকে তাদের সেবক হওয়ার সুযোগ দেবে। আমি যতদিন বেচে থাকবো তাদের সেবক হয়েই থাকবো। দিনরাত যখনই তারা আমাকে ডাকবে আমি তাদের সেবাদানে ছুটে যাবো। আমি আমার এলাকার সাধারন ভোটারদের মুল্যবান ভোটে জয়লাভ করবো ইনশাল্লাহ।