নিউজ প্রতিদিন ডটনেট : আগামী ১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) বিকেলে এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। এর আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে ইসি সচিব হুমায়ূন কবীর সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান।

ইসি সচিব বলেন, ২০২২ সালের ১৬ জানুয়ারি নাসিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৫ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ২০ ডিসেম্বর এবং মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৭ ডিসেম্বর। ভোটগ্রহণ হবে ১৬ জানুয়ারি।

উল্লেখ্য, এটি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের তৃতীয় দফার নির্বাচন। এর আগে দ্বিতীয় দফায় গত ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে নাসিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী দ্বিতীয় দফায় মেয়র নির্বাচিত হন।

এর আগে ২০১১ সালের নির্বাচনে বিজয়ী হন ডা. আইভী। ২০০৩ সালে প্রথম পৌর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তিনি। এবারও নির্বাচনে অংশ নিতে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ডা. আইভী। তিনি ছাড়াই আওয়ামী লীগের আরও তিন নেতা ফরম সংগ্রহ করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্তমান ক্ষমতাশীনদল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পত্র ক্রয় করেছেন ৪ জন। তারা হলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের বর্তমান মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ডা. সেলিনা হায়াত আইভী, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল (ভিপি বাদল), নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি চন্দন শীল ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা।

এ ছাড়া নির্বাচনকে সামনে রেখে যদিও এখনো বাংলাদেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল বিএনপি’র পক্ষ থেকে এ নির্বাচনে অংশগ্রহন করার বিষয়ে কোন কিছু জানানো হয়নি।

সর্বশেষ তথ্য মতে, দেশের যে কোন নির্বাচনের অংশ না নেয়ার কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা। তবে তার পরেও এ নির্বাচনে অংশগ্রহন করার ইচ্ছে পোষন করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি’র অনেকেই। তারা বলছেন, দল অনুমতি দিলে অবশ্যই নির্বাচনে অংশগ্রহন করবো।

এ দিকে রাজনৈতিক এ র্শীর্ষ দুটি দল বাদেও বিভিন্ন দল ও স্বতন্ত্র থেকে এ নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য উঠে আসছে আরও অনেক প্রার্থীর নাম। চালিয়ে যাচ্ছে প্রচার প্রচারণাও।

জানা গেছে, বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ ফুরোবে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারির মাঝা মাঝিতে, আর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনে বর্তমানে নির্বাচিতদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৭ ফেব্রুয়ারি। এই অবস্থায় বিদায়ের আগে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন করে যেতে চাইছে কে এম নূরুল হুদা নেতৃত্বাধীন বর্তমান ইসি।