নারায়ণগঞ্জের সৈয়দপুরে শিশু ধর্ষক শিপনকে সিলেট থেকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই

13

নিউজ প্রতিদিন ডটনেট :নারায়নগঞ্জ সদর মডেল থানাধীন পশ্চিম সৈয়দপুর (মুজিবনগর) আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দা দুমেয়ে শিশু ধর্ষনকারী আসামী শিপন আহমেদ(৩৪) কে গ্রেফতার এবং মামলার মূল রহস্য উন্মোচন করেছে পিবিআই নারায়ণগঞ্জ।

পিবিআইয়ের সংবাদ সম্মেলনের চিত্র হুবহু তুলে ধরা হলোঃ গত ০৯/০২/২০২৪ খ্রিঃ তারিখে বিকাল অনুমান ০৪:৩০ ঘটিকার সময় দুই মেয়ে শিশু কে টিভিতে কার্টুন দেখানোর প্রলোভন দেখিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার সদর মডেল থানাধীন পশ্চিম সৈয়দপুর (মুজিবনগর) আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দা আসামী শিপন আহম্মেদ তার ঘরে ডেকে নিয়ে নাবালিকা মেয়ে ভিকটিমন্বয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

বাদীর স্ত্রী শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় গত জানুয়ারী মাসের মাঝামাঝি সময়ে বাদীর শশুর বাড়ী চাদঁপুরে চলে যায়। বাদী গত ০৭/০২/২০২৪ খ্রিঃ তারিখে নাবালিকা মেয়ে (ভিকটিম) কে একই এলাকায় বসবাসরত তার ফুফুর কাছে রেখে টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমায় চলে যান এবং গত ১১/০২/২০২৪ খ্রিঃ তারিখে বিশ্ব ইজতেমার মোনাজাত শেষে বাড়ীতে আসেন। বাড়ীতে এসে বাদী তাহার নাবালিকা মেয়ে ভিকটিম সহ তাহার আশপাশের লোকজনের মাধ্যমে জানতে পারেন যে আসামী ০১।

শিপন আহম্মেদ (৩৪), পিতা- হারিছ মিয়া, স্থায়ী সাং- গোটাটিকর উছবাড়ী, পোঃ কদমতলী, থানা- সিলেট সদর, জেলা- সিলেট। বর্তমান সাং- পশ্চিম সৈয়দপুর (মুজিবনগর), থানা- নারায়ণগঞ্জ সদর, জেলা- নারায়ণগঞ্জ একই দিন ও সময়ে তার শিশু কন্যাসহ তার পাশের ঘরের অন্য আরেকটি নাবালিকা মেয়ে শিশু কে একই কৌশলে ধর্ষন করেছে। উক্ত ঘটনা আশপাশের লোকজনের মধ্যে জানাজানি হলে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ পরস্পর যোগসাযোসে ধর্ষন ঘটনার বিচার শালিস এর নামে আসামী শিপন কে তার বাড়ী হতে পালিয়ে যেতে সহায়তা করে।

লোমহর্ষক ঘটনাটি প্রিন্ট মিডিয়া, বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হলে পিবিআই নারায়নগঞ্জ জেলা ব্যাপক গুরুত্বের সাথে ঘটনাটির ছায়া তদন্ত শুরু করে। ইতোমধ্যে গত ১০/০৩/২৮ তারিখে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে নারায়নগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা রুজু করলে পিবিআই নারায়নগঞ্জ জেলা মামলাটি রুজুর দিনেই অর্থাৎ গত ১০/০৩/২৪ তারিখে মামলাটি স্বউদ্যোগে তদন্তভার গ্রহন করে।

অ্যাডিশনাল আইজিপি পিবিআই জনাব বনজ কুমার মজুমদার, বিপিএম (বার), পিপিএম মহোদয়ের এর সঠিক তত্বাবধান ও দিক নির্দেশনায়, পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আল মামুন শিকদার মহোদয়ের সার্বিক সহযোগীতায় পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলার একটি চৌকশ টিম মামলা গ্রহনের ২৪ ঘন্টার মধ্যে মামলার আসামী শিপন আহম্মেদ (৩৪) কে সিলেট হতে গ্রেফতার করেন। গত ১০/০৩/২৪ তারিখে মামলার ভিকটিমন্বয় কে বিজ্ঞ আদালতে উপস্থাপন করা হলে ভিকটিদ্বয় বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাফিয়া শারমিন এর আদালতে আসামীর বিরুদ্ধে ধর্ষনের স্বপক্ষে জবানবন্দি প্রদান করেছে।

মামলাটি প্রাথমিক তদন্তকালে, ভিকটিমন্বয়ের বিজ্ঞ আদালতে প্রদত্ত জবানবন্দি পর্যালোচনায় এবং গ্রেফতারকৃত আসামী শিপন আহম্মেদ (৩৪) কে জিজ্ঞাসাবাদ করে তার বিরুদ্ধে মামলার এজাহারে বর্নিত ধর্ষনের ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া যায়। ভিকটিমহুয় এবং তার প্রতিবেশীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে আরো জানা যায় উক্ত ধর্ষনের ঘটনা কাউকে জানালে আসামী শিপন ভিকটিমন্বয়কে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলার হুমকি প্রদান করে। ঘটনার সময় আসামী শিপনের স্ত্রী ইতি আক্তার তার সন্তানসহ তার বাবার বাড়ী পুরাতন সৈয়দপুর এলাকায় ছিল। উক্ত সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে আসামী শিপন আহমেদ নাবালিকা ভিকটিমন্বয় কে ধর্ষণ করে। মামলার ঘটনায় জড়িত অজ্ঞাতনামা আসামী যারা পারস্পরিক যোগসাজোসে বিচার শালিসের নামে আসামী শিপন আহমেদ কে পালিয়ে যেতে সহায়তাসহ বাদী পক্ষ কে বিচার পেতে বাধাঁর সৃষ্টি করেছে সেই বিষয়ে জোর তদন্ত অব্যাহত আছে।