কিস্তিতে পিয়াজের হালি ২০ টাকা

90

তানভীর আহমেদ: শুরুর দিকে পিয়াজের দাম বাড়ার খবরে অনেকেই চমকে গিয়েছিলেন। ব্যতিক্রম ছিলেন আমাদের মহল্লার কলিম ভাই। কলিম ভাই ফেসবুকে পিয়াজের দাম বাড়ার খবর প্রথম শুনতে পারেন। ফেসবুকে আজকাল ভুয়া খবরের ছড়াছড়ি দেখে তিনি সেসব মাথায় মাখলেন না।

আমরা গিয়ে তাকে বললাম, ভাই, পিয়াজের দাম তো বাড়তেই আছে। এভাবে দাম বাড়লে কয়েকদিন পর আকাশের দিকে হা করে তাকিয়ে থাকতে হবে। তিনি আমাদের কথা পাত্তা দিলেন না।

বললেন, কেন? আকাশের দিকে হা করে তাকিয়ে থাকবি কেন? বললাম, ভাই, বামন হয়ে যেমন চাঁদে হাত দেওয়া যায় না। তেমনি মধ্যবিত্তের এই আয়ে পিয়াজের দিকেও হাত বাড়ানো যাবে না। তাই আকাশমুখী হা করে চাঁদের দিকে তাকিয়ে থাকা আর বাজারে গিয়ে পিয়াজের দিকে তাকিয়ে থাকাও তাই। তিনি আমাদের কথা উড়িয়ে দিয়ে বললেন, তোরা, ফেসবুকের খবরে এত কান দিস— ওসব স্রেফ গুজব। আমরা  কলিম ভাইকে জোর করে ধরে বাজারে নিয়ে গেলাম। দূর থেকে লক্ষ্য করলাম, তিনি বেশ স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গেই আছেন। হাতে দুয়েকটি পিয়াজও দেখা গেল। অবাক না হয়ে আর পারা গেল না। কাছে গিয়ে বললাম, ভাই, ঘটনা কী? বললেন, ঘটনা তেমন কিছুই নয়। পিয়াজের হালি বিক্রি হচ্ছে, সঙ্গে নাকি কিস্তির সুবিধাও আছে। তাই আর দেরি করিনি। এক হালি কিনেই ফেললাম !